ঢাকাশুক্রবার, ১৭ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নতুন প্রজন্মকে মিথ্যা ইতিহাস শেখাচ্ছে আওয়ামী লীগ : ডা. শাহাদাত হোসেন

বাংলা ডেস্ক | সিটিজি পোস্ট
জুন ৪, ২০২২ ৯:৪০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাসে কোন কিছু লেখা সম্ভব নয়। দেশের সার্বিক উন্নয়নে তাঁর যে অবদান রয়েছে তাতে কোনোভাবেই জিয়াউর রহমানকে অস্বীকার করার সুযোগ নেই। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে আওয়ামী লীগের নেতারা যখন দেশ থেকে পালিয়ে গিয়েছিল, ঠিক সেই কঠিন মুহুর্তে কারও নির্দেশ ছাড়াই তৎকালীন মেজর জিয়াউর রহমান জীবনের ঝুকি নিয়ে ‘উই রিভোল্ট‘ বলে বিদ্রোহ করেছেন। তিনি তার অধিনায়ক জেনারেল জানজুয়াকে গ্রেফতার ও হত্যার মাধ্যমে স্বাধীনতার ঘোষণা করে নিজে যুদ্ধ করেছেন। অথচ নতুন প্রজন্মকে এখন সম্পূর্নভাবে মিথ্যা ইতিহাস শেখাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

 

শনিবার বিকেলে নগরীর ১৫নং বাগমনিরাম ওয়ার্ড যুবদলের উদ্যোগে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪১তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে খাদ্য বিতরণ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ রকথা বলেন।

 

তিনি বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের শাসনামলে বিদেশে জনশক্তি রপ্তানির মাধ্যমে বিদেশি মুদ্রা অর্জনের পথ তৈরি করেছেন। বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে শ্রমিক রপ্তানি শুরু করেন। মুসলিম বিশ্বে তিনি ছিলেন অত্যন্ত সম্মানিত ও সুপরিচিত নেতা। আজকে ক্ষমতায় বসে আছে ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ। তারা স্কুলের বই থেকে জিয়াউর রহমান সম্পর্কে সঠিক ইতিহাস সরিয়ে দিয়েছে। স্বাধীনতার ঘোষক হিসেবে তার নাম রাখা হয়নি। বেগম খালেদা জিয়া সংবিধানে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা সংযোজন করেছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ সেটা বাতিল করেছে। খালেদা জিয়ার শাসনামলে বাংলাদেশের পরিচিতি ছিল ‘ইমার্জিং টাইগার’। আওয়ামী লীগ জিয়া পরিবারের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষণীয় হয়ে ধংস করার পায়তারা করছে। কিন্তু কোনো শক্তি জিয়া পরিবার ও বিএনপিকে ধংস করতে পারবে না।

 

সভায় প্রধান বক্তা চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেছেন, আজকে সারা দেশের মানুষ ভোট ডাকাত আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি বিক্ষুব্ধ, এই সরকারের প্রতি আস্থা হারিয়েছে। তাই আজকে দেশের জনগণ চায় এদেশে একটা সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন হোক। তাহলে আজকে যে বাংলাদেশের সংকট প্রত্যেকটা সমস্যার সমাধান সম্ভব। গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার সম্ভব, মানুষের অধিকার পুনরুদ্ধার সম্ভব, কথা বলার অধিকার পুনরুদ্ধার সম্ভব, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব, অর্থনীতিতে যে লুটপাট হচ্ছে সেই লুটপাট বন্ধ করা সম্ভব। এই সরকার ক্ষমতায় থাকলে এদেশে কখনো নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে না, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে না, তারা অতীতের নির্বাচনগুলোতে প্রমাণ করেছে। আজকে আন্তর্জাতিকভাবে এটা স্বীকৃত। অতএব এই সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন হবে না, নির্দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন হতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই।

 

১৫নং বাগমনিরাম ওয়ার্ড যুবদল নেতা হাজী রেজাউল করিম মানিকের সভাপতিত্বে ওয়ার্ড যুবদল নেতা আবুল হোসেনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, নগর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক বাদশা। বক্তব্য রাখেন কোতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, মহানগর বিএনপির সাবেক নেতা শাহ আলম, আবুল খায়ের মেম্বার, রফিক সর্দার, মো. ইসহাক, বাগমনিরাম ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ফয়েজ, মো. নাছির উদ্দিন, নগর যুবদলের সহসভপিতি নাছির উদ্দিন চৌধুরী নাছিম, নগর ছাত্রদলের সাবেক সহসভাপতি ইকবাল হোসেন জিসান, নগর যুবদলের সহ সম্পাদক মো. সালাহ উদ্দিন, মোহাম্মদ ইদ্রিস, আবদুস সাত্তার, যুবদল নেতা মোহাম্মদ সেলিম, আবদুল জলিল, জহির উদ্দিন মিন্টু, মো. জিতু, আকবর হোসেন, মো. সেকান্দর, নজরুল ইসলাম, মো. হাক্কান, মো. কাওছার, মো. বাচ্চু, সেলিম উদ্দিন, ইব্রাহিম হোসেন, মিঠু দাস প্রমূখ।