ঢাকাশুক্রবার, ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আর্থিক অনটনের কাছে হার মানলেন কুয়েট শিক্ষার্থী

স্টাফ রিপোর্টার | সিটিজি পোস্ট
এপ্রিল ৬, ২০২২ ৪:০০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) টেক্সটাইল ১৮ ব্যাচের ছাত্র অন্তু রায় (২১) ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় কাপড় পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সোমবার (৪ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে ডুমুরিয়া উপজেলার গুটুদিয়া ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

অন্তু রায় উপজেলার গুটুদিয়ার দিনমজুর দেবব্রত রায়ের ছেলে।

ডুমুরিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান ঢাকা পোস্টকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, অন্তু খুবই মেধাবী ছাত্র। তবে তার পরিবারে আর্থিক অনটন ছিল। পাশাপাশি কুয়েটের ড. এম এ রশিদ হলেও তার অনেক টাকা বকেয়া হয়ে গিয়েছিল। গতকাল (রোববার) অন্তু তার পরিবারের কাছে টাকা চায়। এ সময় তার মা তাকে ৩ হাজার টাকা দিয়েছিল।

 

পরে আজ (সোমবার) সকালে তার বাবা দেবব্রত রায় ও মা মাঠে যায় কাজ করতে যান। তার ছোট বোন বেলা ১১টার দিকে প্রাইভেট পড়া থেকে এসে ঘরের মধ্যে অন্তুর মরদেহ ঝুলতে দেখে।

কুয়েট শিক্ষার্থীরা জানায়, অন্তু মেধাবী ছাত্র ছিল। তার আর্থিক সংকটও ছিল। হলে তার কিছু টাকা বকেয়া হয়ে গিয়েছিল। হলের প্রভোস্টের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনাও হয়েছিল। এরই মধ্যে তার এমন মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।

এদিকে তার এমন মৃত্যুতে কুয়েট পরিবার শোকাহত। অন্তুর পরিবারকে শোক জানাতে ইতোমধ্যে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধানসহ শিক্ষকরা তাদের বাসায় গিয়েছিলেন।

 

ডুমুরিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান ঢাকা পোস্টকে বলেন, গতকাল অন্তুর মা তা‌কে ৩ হাজার টাকা দেন। আজ তার কুয়েটে ফি‌রে যাওয়ার কথা ছিল। সকালে বাবা-মা ঘরে ছিল না। বেলা ১১টার দিকে অন্তুর বোন দেখে তার ভাই ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলছে।

 

মাটির ঘরের বাঁশের আড়ার সঙ্গে কাপড় পেঁচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। পরে দ্রুত উদ্ধার করে হাসপাতা‌লে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চি‌কিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মে‌ডি‌কেল ক‌লেজ হাসপাতা‌ল ম‌র্গে প্রেরণ ক‌রা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা করা হ‌য়ে‌ছে।