ঢাকাশুক্রবার, ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নারী মানেই শক্তি

তাহিয়া আহমেদ চৌধুরী | সিটিজি পোস্ট
মার্চ ৮, ২০২২ ১২:৫৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

জন্ম থেকে শুরু করে মৃত্যু পর্যন্ত নারীর অবদান থাকে একজন মানুষের জীবনের অর্ধ শতাংশ। অনেক ক্ষেত্রে অর্ধেক এর চেয়ে অনেকাংশে বেশিও থাকে। আমাদের মানবজীবনে নারীর অনেক গুলো চরিত্র আছে। একজন নারী কখনো মা হয়ে শক্তি দেয় । কখনো বোন হয়ে পাশে দাঁড়ায়। কখনো মেয়ে হয়ে মনোবল দেয়। কখনো স্ত্রী হয়ে জীবনে অগ্রগতির জন্য শক্তি হয়ে পাশে দাঁড়ায়। কখনো নানি-দাদি হয়ে কথাবলার সঙ্গী হয়। কখনো বান্ধবী হয়ে খারাপ সময়ে পাশে থাকে ইত্যাদি। একজন নারীর উপমা শুধু একজন নারীই।

 

 

নারী যখন মা: একজন মা সন্তানের জন্য তার জীবন প্রায় সবটাই উজাড় করে দেন। তার সন্তান কে মানুষের মত মানুষ বানানোর জন্য সবকিছু করতে রাজি থাকেন। তেমনি সন্তান এর ভালো সময় খারাপ সময়ে ঢাল হয়ে পাশে দাঁড়ান। তার সন্তান এর যেন কেউ কোনো ক্ষতি করতে না পারে সেজন্য মা থাকেন সর্বদা প্রস্তুত।

 

নারী যখন স্ত্রী : একজন স্ত্রী তার স্বামীর জন্য নিজের সর্বোচ্চ ত্যাগ করতে রাজি থাকেন সর্বদা।

স্বামীর অগ্রগতির জন্য নিজের ইচ্ছা-শখ কে বিসর্জন দিয়ে স্বামীর দিকেই সর্বদা নজর রাখেন।

স্বামীর চিরসঙ্গী হয়ে সবসময় স্বামীর পাশে ঢাল হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে তার স্ত্রী।

 

নারী যখন বোন: একজন বড় বোন তার ভাইয়ের জন্য মায়ের সমতুল্য। একজন বোন তার ভাইয়ের জন্য ভালো পরামর্শক, অসুস্থতার সময় সেবিকা, মন খারাপের সময় মনের শক্তি হয়ে সবসময় পাশে থাকেন।

 

নারী যখন বন্ধু : একজন সৎ বন্ধু কোনো অংশে কম নয়। মানসিক ভাবে সাপোর্ট দেয়ার জন্য একজন সৎ বন্ধু অনেক ভুমিকা পালন করে। তখন বন্ধু একজন নারী হয় তখন সেই বন্ধু তার বন্ধুকে রক্ষা করার জন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকে।

 

একজন নারীর অবদান এর শেষ নেই। বর্তমানে দেশের উন্নয়নের ক্ষেত্রেও নারীর বেশিরভাগ অবদান। দেশের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে, সার্বিক উন্নয়নে, কুটির শীল্পে,পোশাক শীল্পে ইত্যাদি সবজায়গায় নারীর অবদান অনেক। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীই একজন নারী, বিরোধী দলের নেত্রী এবং সংসদেও বিরোধী নেত্রী নারী।

 

তবুও আজও দেশের নারীরা সামাজিক সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক ও মনস্তাত্ত্বিক ভাবেও অবহেলিত, নারীর অবদান মানুষ ভুলে গিয়ে তাদের উপর করে পাশবিক নির্যাতন, তারা ভুগতে হয় শারীরিক, মানসিক অত্যাচার।

 

আমরা দেখি এখন দিন দিন ধর্ষনের হারও বেড়ে চলছে। প্রতিদিন প্রতিনিয়ত অনেক নারীই ধর্ষনের শিকার হচ্ছে যেগুলোর ৮০ শতাংশের ও বেশি খবর আমারা পাইনা। এমনকি একজন নারী তার নিজ গৃহেও নিরাপদে নেই। ডোমেস্টিক ভায়োল্যান্সের শিকার হচ্ছে হাজার হাজার নারী। এসবের সঠিক পরিসংখ্যান আমরা জানি না।

 

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ নারীদের দিয়েছেন তাঁর অধিকার। আমাদের পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহই নারীদের দিয়েছেন সর্বোচ্চ মর্যাদা। আমাদের সবার উচিত নারীদের সাথে ঘটে যাওয়া অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো। আর সবার উচিত নারীকে তার নিজের প্রাপ্য সম্মান টুকু দেয়া।

তাই এই নারী দিবসে আমরা নারীদের মর্যাদা উপলব্ধি করি। ঘরে বাইরে কর্মস্থলে নারীদের তার প্রাপ্য অধিকার ও সম্মানটুকু দি।

 

আর নারীদের প্রতি অনুরোধ সবসময় মনে রাখতে হবে “নারী মানেই শক্তি”।